<< বাইটপোর সভাপতি সামছুদ্দীন মাহমুদ ডিসি একুশে এলায়েন্স-এর চীফ কো অর্ডিনেটর নির্বাচিত

ডিসি একুশে এলায়েন্সের ২০২১ সালের সমাপনি সভায় সর্বসম্মতিক্রমে ২০২২ সালের জন্য বাংলাদেশী এমেরিকান আইটি প্রফেশনালস অর্গানাইজেশন (বাইটপো) কে হোস্ট এবং বাইটপোর সভাপতি সামছুদ্দীন মাহমুদকে চীফ কো অর্ডিনেটর নির্বাচিত।

১৮ই নভেম্বর, ২০২১ ডিসি একুশে এলায়েন্সের ২০২১ সালের সমাপনি অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত হয়। ডিসি একুশে এলায়েন্সের কোঅর্ডিনেটর এবং বর্তমান প্রধান নির্বাচন কমিশনার প্রিয়বাংলার প্রিয়লাল কর্মকারের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানটি পরিচালনা করেন সহকারী নির্বাচন কমিশনার এবং সাবেক কো অর্ডিনেটর এন্থনী পি গোমেজ ও নির্বাচন কমিশনার এবং বেস্ট এর ডঃ ফয়সাল কাদের।

অনুষ্ঠানে অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন ডিসিইএ গাইডলাইন কমিটির প্রধান ডঃ শোয়াইব চৌধুরী, নিউজ বাংলার ডঃ আরিফুর রহমান, ধ্রুপদের হিরন চৌধুরী, স্বদেশ এর শরাফত হোসেন বাবু, বাকডিসির পক্ষে করিম সালাউদ্দিন ও কচি খান, ফ্রেন্ড এন্ড ফ্যামিলির আবু রুমী, আবিয়ার পক্ষে মিজান রহমান, বাই এর পক্ষে সালেহ আহমেদ, ডুয়াফীর পক্ষে চুট্টি চৌধুরী বাকোডিসির পক্ষে মজনু মিয়া, বুয়েটারিয়ান ইউএসএ পক্ষে কবির আহমেদ ও সারোয়ার সিদ্দীকি, আমরা বাঙ্গালী ফাউন্ডেশনের পক্ষে জীবক বড়ুয়া, বাংলাদেশী আমেরিকান ফাউন্ডেশনের পক্ষে হাসান চৌধুরী, ম্যারিল্যান্ড ফ্যান্ডস এন্ড ফ্যামিলির পক্ষে মোহাম্মদ কাজল ও লীনা চৌধুরী প্রমুখ।

অনুষ্ঠানে প্রধান নির্বাচন কমিশনার প্রিয়লাল কর্মকার জানান, দীর্ঘ ২ বছর অনেক পরিশ্রমের ফলে ডিসি ভার্জিনিয়া ও ম্যারিল্যান্ডের গত বারের ২৭ টি সংগঠনের যৌথউদ্যোগে সম্মিলিতভাবে একুশে উদযাপনের জন্য একটি নীতিমালা প্রণয়ন করা হয়েছে। ইতিমধ্যে ২৭টি সংগঠন এতে স্বাক্ষর করেছে, আর এই নীতিমালার অধিনেই প্রথমবারের মতো এবার নির্বাচন হচ্ছে। নীতিমালার সকল নিয়ম কানুন মেনে বাইটপো আগামী বছর হোস্টিং এর জন্য তাদের আবেদন জমা দিয়েছে। নির্বাচন কমিশন অত্যন্ত সতর্কতার সাথে তাদের আবেদন পরীক্ষা নিরীক্ষার পর তাদেরকে আগামী বছর একুশে এলায়েন্সের হোস্টের জন্য নির্বাচিত করেছে। সে সাথে বাইটপোর সভাপতি সামছুদ্দীন মাহমুদকে চীফ কোঅর্ডিনেটর হিসাবে নির্বাচন করা হয়।

অনুষ্ঠানে সর্বসম্মতভাবে সবাই বাইটপো এবং সামছুদ্দীন মাহমুদকে স্বাগত ও অভিনন্দন জানান এবং সম্মিলিতভাবে একুশে উদযাপনের জন্য সর্ব্বোতভাবে সহযোগিতার আশ্বাস দেন।

অনুষ্ঠানে নতুন চীফ কোঅর্ডিনেটর সামছুদ্দীন মাহমুদ একুশে এলায়েন্সের ২৭টি সংগঠনের নেতৃবৃন্দকে ধন্যবাদ দিয়ে আগামীতে সবাইকে নিয়ে এক সাথে কাজ করার প্রত্যয় ব্যক্ত করেন। উল্লেখ করেন প্যান্ডামিকের কারনে গত বছর ভার্চুয়াল অনুষ্ঠান হলেও এ বছর সরাসরি অনুষ্ঠান হবে। এ বিষয়ে বিষদ পরিকল্পনা এবং উপকমিটির গঠন কল্পে শীঘ্রই পরবর্তী সভার তারিখ ঘোষনা করা হবে বলে জানান।

শেয়ার করলে অনুপ্রাণিত হবো...

Leave a Reply

Your email address will not be published.